1. admin@dainikmanobadhikarsangbad.com : admin :
সিনেমাকেও হার মানিয়েছে যে প্রেম,মৃত্যুপথযাত্রী প্রেমিকাকে হাসপাতালে বিয়ে - দৈনিক মানবাধিকার সংবাদ
১লা ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ| ১৮ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ| শীতকাল| বুধবার| সন্ধ্যা ৬:০৫|
শিরোনামঃ
সাতক্ষীরায় কৃষি ঋণ মেলায় প্রথম দিনে জনতা ব্যাংকের উদ্যোগে ১১ জনকে ঋণের চেক বিতরণ চক্রান্ত মূলক মামলা থেকে বাঁচতে চায় সাংবাদিক রাজীব আলি রাতুল তালায় পিক-আপের ধাক্কায় মোটর সাইকেল চালক নিহত পাইকগাছায় সাজানো ও মিথ্যা চাঁদাবাজী মামলায় ৪ সাংবাদিকের আদালত থেকে জামিন লাভ তালায় আদম পাচারকারী প্রতারক পরিবারের খুঁটির জোর কোথায়? রামগড় ৪৩ বিজিবি উদ্যোগে চিকিৎসা সেবা প্রদান রামগড় শহর সমাজসেবা কর্তৃক ওরিয়েন্টেশন ও সনদ বিতরন অনুষ্ঠিত নন্দীগ্রাম ইউনাইটেড প্রেসক্লাব থেকে আব্দুল আহাদকে বহিস্কার প্রেমের জন্য লিঙ্গ বদলালেন তরুণী, সংসার ছেড়ে অন্য প্রেমিককে মন দিলেন তাঁর সঙ্গিনী! জাতিসংঘে বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধির সাথে সাংবাদিকবৃন্দোর শুভেচ্ছা ও মতবিনিময়

সিনেমাকেও হার মানিয়েছে যে প্রেম,মৃত্যুপথযাত্রী প্রেমিকাকে হাসপাতালে বিয়ে

নিউজ ডেস্কঃ
  • Update Time : সোমবার, মার্চ ১৪, ২০২২,
  • 423 Time View

বলা হয় প্রেম অমর, শাশ্বত। প্রেম নিয়ে রচিত হয়েছে কতো মহাকাব্য। প্রেমের জন্য আত্মত্যাগ আর বিসর্জনের কাহিনীও কম নয়। প্রিয়জনের জন্য ভালোবাসার তেমনই অনন্য নজির গড়লেন মাহমুদুল হাসান নামে এক তরুণ। ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুপথযাত্রী প্রেমিকা ফাহমিদা কামালকে বিয়ে করলেন চট্টগ্রামের হাসপাতালে। তাদের প্রেম যেন সিনেমার কাহিনীকেও হার মানায়।

মাহমুদুল হাসানের বাড়ি কক্সবাজারের চকরিয়ায়। নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবিএ করেছেন। ফাহমিদা কামালের বাড়ি চট্টগ্রামের দক্ষিণ বাকলিয়ায়। আইইউবি থেকে বিবিএ করেছেন। শিক্ষা জীবনে দু’জনের পরিচয় থেকে প্রেম। স্বপ্ন দেখা শুরু। সারাজীবন একসাথে পথ চলার অঙ্গীকার করেন দু’জনেই।

কিন্তু হঠাৎ ঝড়ে সব এলোমেলো। ফাহমিদার শরীরে ধরা পড়ে মরণব্যাধি ক্যান্সার। উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রথমে ঢাকায় এভারকেয়ার হাসপাতালে, পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য নেয়া হয় ভারতের টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতালে। প্রায় এক বছর সেখানে চিকিৎসার পর জবাব দেন চিকিৎসকরা।

উপায়ন্তর না দেখে ফাহমিদাকে দেশে এনে ভর্তি করা হয় চট্টগ্রাম মহানগরীর জিইসি মোড়ে অবস্থিত বেসরকারি হাসপাতাল ‘মেডিকেল সেন্টারে’। কিন্তু দিনদিন অবস্থার অবনতি হতে থাকে ফাহমিদার। আগের সেই সুশ্রী তরুণী ফাহমিদাকে দেখে যেন চেনাই যায় না। হাসপাতালের বেডে মৃত্যুযন্ত্রণায় কাতরাতে থাকা ফাহমিদার কষ্ট দেখে, স্থির থাকতে পারেননি মাহমুদুল।

নেন কঠিন এক সিদ্ধান্ত। মৃত্যুপথযাত্রী প্রেমিকাকে বিয়ের কথা জানান পরিবারকে। মাহমুদুলকে নানাভাবে বোঝানোর চেষ্টা করেও বিফল পরিবার। তিনি নিজের সিদ্ধান্তে অনড়। তার ভাষ্য, প্রেমিকা ফাহমিদাকে যদি মরতেই হয়, তাহলে তার বুকে মাথা রেখেই মরতে হবে। মাহমুদুলের নি:স্বার্থ ভালোবাসার কাছে হার মানেন ফাহমিদাও। রাজি হন বিয়েতে। গত ৯ মার্চ বাদ এশা মেডিকেল সেন্টারে সম্পন্ন হয় বিয়ে।

লাল বেনারসি শাড়ি, গলায় স্বর্ণের চেইন পরেছিলেন কনে ফাহমিদা। তখনো নাকে, হাতে স্যালাইনের নল লাগানো। পায়জামা-পাঞ্জাবি পরা বর মাহমুদুলের সাথে মিলে কেক কাটেন। হয় মালা বদল। যেনো স্বর্গীয় এক পরিবেশ। মরণঘাতি ক্যান্সারকে জয় করে ফাহমিদা সুস্থ হয়ে উঠুক, মাহমুদুলের সাথে শুরু হোক সুখের সংসার, এমনটাই প্রত্যাশা সেদিন উপস্থিত থাকা সবার।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি। © প্রকাশক কতৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত -২০২২